নারী সহকর্মীকে গুলি করে হত্যার পর আত্মহত্যা করলেন পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর

0
180

প্রেমে প্রত্যাখিত হওয়ায় দিল্লি পুলিশের এক এসআই তাঁর নারী সহকর্মীকে নির্মমভাবে গুলি করে মারলেন। পরে নিজেও আত্মহত্যা করলেন তিনি। এই ঘটনায় ফের একবার শিউরে উঠেছে পুরো দিল্লির মানুষ।

শুক্রবার রাতে ভারতের রাজধানী দিল্লির রোহিণীতে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম প্রীতি অহলাওয়াত (২৬)। আর আত্মঘাতী পুলিশ সদস্যের নাম দীপাংশু রাঠী।

জানা যায়, দিল্লির রোহিনী অঞ্চলে একই ভাড়া বাড়িতে থাকতেন প্রীতি ও অভিযুক্ত সহকর্মী দীপাংশু। দু’‌জনেই ২০১৮ ব্যাচের স্নাতক। দিল্লি পুলিশের কর্মী দীপাংশু অনেকদিন ধরেই মনে মনে ভালবাসতেন প্রীতিকে। কিছুদিন আগে সেই প্রেমকে পরিণতি দিতে প্রীতিকে বিয়ের প্রস্তাবও দেন তিনি। কিন্তু সেই প্রস্তাবে রাজি হননি প্রীতি অহলাট। সেই প্রত্যাখ্যানই দীপাংশুর মনে জন্ম দেয় প্রতিহিংসার, আর তার থেকেই এই খুন বলে মনে করা হচ্ছে।

শুক্রবার প্রীতির উপর যখন হামলা চালান দীপাংশু, তখন তিনি কাজ সেরে বাড়িতে ফিরছিলেন। তখন ঘড়িতে প্রায় রাত সাড়ে ৯টা। মেট্রো থেকে নেমে পায়ে হেঁটেই ফিরছিলেন প্রীতি, সেই সময়ই দীপাংশু এসে তাঁকে লক্ষ্য করে একটি নয়, পরপর তিনটি গুলি চালান। পুলিশ জানিয়েছে মাথায় তিনটি গুলি লাগার ফলেই মৃত্যু হয়েছে প্রীতির। তারপরেই খুনের অভিযোগ ওঠে তাঁর সহকর্মী দীপাংশু রাঠির বিরুদ্ধে। যদিও জানা যায়, প্রীতিকে হত্যার পর তিনি নিজেও আত্মহত্যা করেন। প্রীতির দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। এলাকার সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY